ধোনিকে সাতে নামানোর মাশুল দিয়েছে ভারত

এবং ডেস্ক : বিশ্বকাপের সেমিফাইনাল থেকে দুর্দান্ত খেলা ভারত বিদায় নিয়েছে। সীমার মধ্যে লক্ষ্য পেয়েও জিততে পারিনি বিরাট কোহলির দল। তাদের বিপক্ষে গেছে উইকেট। বিপক্ষে গেছে ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে নেওয়া সিদ্ধান্তও। ভারতীয় দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মাহেন্দ্র সিং ধোনিকে সাতে ব্যাটিংয়ে পাঠানো ভারতের বড় ভুল।

ভারতের সাবেক তারকা এবং ক্রিকেট বিশ্লেষক সৌরভ গাঙ্গুলি-ভিভিএস লক্ষ্মণরা এমনই মনে করছেন। নিউজিল্যান্ডের ২৩৯ রান তাড়া করতে নেমে ভারত ১৮ রানে হেরেছে। ওল্ড ট্রাফোর্ডের ভেজা উইকেট। সঙ্গে সকালের মেঘলা আকাশ কাঁদিয়ে বাড়ির পথ ধরিয়ে দিয়েছে কোহলিদের। শুরুর ৫ রানে ৩ উইকেট। পরে ২৪ রানে ৪ উইকেট হারানোর পরও শেষ পর্যন্ত লড়ে গেছে ভারত। তৈরি করেছে জয়ের সম্ভাবনা। শেষ পর্যন্ত ভারতের হারের দায় টিম ম্যানেজমেন্টের বলে মনে করছেন ওই দুই সাবেক।

তাদের মতে, দিনেশ কার্তিক এবং হার্ডিক পান্ডিয়ার আগে ব্যাটিংয়ে পাঠাতে হতো ধোনিকে। যে কি-না একদিকে হাল ধরে রাখবেন। অন্যদিকে পান্ত এবং হার্ডিক পান্ডিয়ার মতো ‘মারকুটে, রক্তগরম’ ক্রিকেটারদের দিয়ে খেলিয়ে নেবেন। ধোনি সাতে নেমে ওই কাজটাই করেছেন। রবিন্দ্র জাদেজাকে দিয়ে গড়েছেন ১১৬ রানের জুটি। জাদেজা খেলেছেন বিশ্বকাপ সেমিফাইনালে রেকর্ড ৭৭ রানের ইনিংস। জাদেজা ৪৮তম ওভারে ফেরেন। ধোনি ৫০ রান করে ৪৯তম ওভারে রান আউট হন। ধোনি ক্রিজে থাকা পর্যন্ত ম্যাচ ভারতের দিকে ছিল।

বিশ্বকাপে টিভি বিশ্লেষক হিসেবে কাজ করা লক্ষ্মণ বলেন, ধোনিকে সাতে ব্যাটিংয়ে পাঠানো ভারতের কৌশলগত বিরাট এক ভুল। পান্ডিয়ার আগে ধোনির নামা উচিত ছিল। এমনকি কার্তিকেরও আগে। ধোনির সাতে নয় ব্যাটিং করা উচিত ছিল পাঁচে।’ তিনি মন্তব্য করেন, কোহলিদের ২০১১ বিশ্বকাপের কথা মাথায় রাখা উচিত ছিল। ধোনি সেবার যুবরাজের আগে ব্যাটিংয়ে নেমে ম্যাচ বের করে আনে। এবারও তার জন্য মঞ্চ তৈরি ছিল।

ভারতীয় ক্রিকেটের দাদা সৌরভ গাঙ্গুলি বিষয়টি আরও পরিষ্কার করে বিশ্লেষণ করেছেন। বিশ্বকাপে ধারাভাষ্য দেওয়া সৌরভ বুঝিয়ে দিয়েছেন কেন ধোনিকে পাঁচে নামাতে হতো। আকারে ইঙ্গিতে বুঝিয়ে দিয়েছেন, এটা আইপিএল নয়। ভারতের উইকেট নয়। হাতের নাগালে রান পেয়ে কেউ একজন ম্যাজিক দেখাবে আর তুমি জিতে যাবে। বরং এটা কৌশলগত ম্যাচ ছিল।

সৌরভ বলেন, ‘পান্তের মতো তরুণরা যখন ব্যাট করছেন। অন্য প্রান্তে ধোনির মতো ঠান্ডা মস্তিষ্কের এবং উইকেটে শিকড় গাড়ার মতো কারো দরকার ছিল। অভিজ্ঞতা প্রয়োগের দরকার ছিল। ধোনি ক্রিজে থাকলে কোনোভাবেই পান্তকে বাতাসের বিরুদ্ধে তুলে শট খেলতে দিত না। ইংল্যান্ডের কন্ডিশন বোঝাটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ধোনি থাকলে মিড অফ ও মিড অনে পান্তকে পেসারদের বিপক্ষে শট খেলতে বলত। এমন ম্যাচে ধোনির মতো ব্যাটসম্যানকে সাতে নামানো মানায় না।

পান্ত ফিরে যাওয়ার পর দেখা গেছে হার্ডিক পান্ডিয়াও ভুল শট নির্বাচন করে আউট হয়েছেন। ধোনি যদি জাদেজার সঙ্গে গড়া ওই জুটিটা পান্ত কিংবা পান্ডিয়ার সঙ্গে গড়ত তবে ফাইনালে থাকতে পারত ভারত। এছাড়া গত দেড় বছরে ভারতের মিডল অর্ডার শক্ত করতে পারেননি বলেও নির্বাচকদের এক হাত নিয়েছেন গাঙ্গুলি। কৌশলগত ভুল শচীন টেন্ডুলকারও চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন, ‘ম্যাচের অমন পরিস্থিতিতে ধোনিই কি সেরা নয়?’

ট্যাগ্স
আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Leave a Reply

Close