মুশফিককে রেখে ফিরলেন সাব্বির-মোসাদ্দেকরা

এবং ডেস্ক : টস জিতে শুরুতে ব্যাট করে ৩১৪ রানের বড় সংগ্রহ পায় শ্রীলংকা। ওই রান টপকাতে হলে শুরুতে ভালো ব্যাটিং করতে হতো বাংলাদেশের। কিন্তু মালিঙ্গা শুরুতে তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকারকে বোল্ড করে সাজঘরে ফেরান। মধ্যে ফিরে যান মোহাম্মদ মিঠুন। দলের ৩৯ রানে মাহমুদুল্লাহ আউট হলে চাপে পড়ে বাংলাদেশ। মুশফিক-সাব্বিরে ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। তবে মুশফিককে রেখে সাব্বির, মোসাদ্দেক এবং মিরাজ ফিরে গেলে বিপাকে পড়ে টাইগাররা।

বাংলাদেশ ৩৭ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ১৯৭ রান তুলেছে। মুশফিকুর রহিম অপরাজিত আছেন ৬৬ রানে। ক্রিজে আছেন শফিউল ইসলাম।

বাংলাদেশের অন্য ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মোহাম্মদ মিঠুন ১০ রান করে সাজঘরে ফেরেন। সৌম্য সরকার করেন ১৫ রান। তামিম ইকবালের নেতৃত্বের অভিষেক হয় পাঁচ বলে ডাক মেরে। মাহমুদুল্লাহ করেন ৩ রান।

এর আগে কুশল পেরেরা এবং অধিনায়ক দিমুথ করুনারত্নে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ইনিংসের ভিত্তি গড়ে নেয় শ্রীলংকা। তারা ৯৭ রান যোগ করেন। এক প্রান্তে ঝড় তোলেন কুশল পেরেরা। অন্য প্রান্তে উইকেট ধরে রেখে করুনারত্নে ফেরেন ৩৬ রান করে। ঝড় তোলা কুশল ফেরেন ৯৯ বলে ১১১ রান করেন। তিনে নেমে এই উইকেটরক্ষক ১৭ চার এবং এক ছক্কা হাঁকান।

কুশল পেরেরাকে দারুণ সঙ্গ দেন চারে নামা কুশল মেন্ডিস। তিনি ৪৩ রান করে রুবেল হোসেনের বলে ফেরেন। মুশফিকের হাতে ক্যাচ দেন তিনি। কিন্তু উইকেটরক্ষক মুশফিক কিংবা বোলার রুবেল বুঝতে পারেননি তা। আউটের আবেদন না দেখে আম্পায়ারও ছিলেন নির্বিকার। কিন্তু সততা দেখিয়ে মেন্ডিস সাজঘরের পথ ধরেন। দুই কুশল মিলে যোগ করেন পুরোপুরি একশ’ রান।

শেষ দিকে রান বাড়ানোর দায়িত্ব বুঝে নেন অ্যাঞ্জেল ম্যাথুস। তিনি খেলেন ৫২ বলে ৪৮ রানের ইনিংস। শেষ দিকে অবশ্য খুব একটা চড়াও হতে পারেননি তিনি। তার সঙ্গে থাকা লাহিরু থিরিমান্নের ব্যাট থেকে আসে ৩০ বলে ২৫ রান। তারা একটা ঝড় তুলতে পারলে সাড়ে তিনশ’র ধাক্কা নিত লংকানদের রান। শেষ দিকে ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা কিছু রান যোগ করেন।

ট্যাগ্স
আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Leave a Reply

Close