উবার-পাঠাও যাত্রীদের ভ্যাট দিতে হবে না

এবং ডেস্ক : যাত্রীদের নয়, উবার-পাঠাওয়ের মতো রাইডশেয়ারিং কোম্পানিকে তাদের প্রাপ্য কমিশনের ওপর ৫ শতাংশ হারে মূল্য সংযোজন কর (মূসক বা ভ্যাট) দিতে হবে। রাইডশেয়ারিং কোম্পানির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার এ সংক্রান্ত ব্যাখ্যা জারি করেছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

এতে বলা হয়েছে, বর্তমানে মোবাইল অ্যাপসভিত্তিক বিভিন্ন পরিবহনের রাইডশেয়ারিং সেবা (উবার, পাঠাও, সহজ) খুব দ্রুত জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। চলতি অর্থবছরের বাজেটে রাইডশেয়ারিং সেবাকে ভ্যাটের আওতায় আনা হয়েছে এবং রাইডশেয়ারিং সেবার ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে। সে অনুযায়ী রাইডশেয়ারিং অর্থ কোনো ইন্টারনেট বা ওয়েব বা অনলাইন প্লাটফর্ম বা মোবাইল বা অন্য কোনো ইলেক্ট্রনিক অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার করে ব্যক্তিমালিকাধীন মোটরযানের মাধ্যমে যাত্রী পরিবহন করলে তা রাইডশেয়ারিং বলে গণ্য হবে এবং সেবার বিপরীতে ৫ শতাংশ ভ্যাট দিতে হবে।

চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে রাইডশেয়ারিং সেবার ওপর সাড়ে ৭ শতাংশ হারে ভ্যাট আরোপ করা হয়। পরে বাজেট পাসের আগে ভ্যাট হার কমিয়ে ৫ শতাংশ করা হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে রাইডশেয়ারিং কোম্পানিগুলো ভ্যাট কী যাত্রী দেবে কিনা সে সম্পর্কে এনবিআরে জানতে চায়। এ চিঠির জবাবে এনবিআর ব্যাখ্যা জারি করে। অবশ্য ২০১৮-২৯ অর্থবছরের বাজেটে প্রথমবারের মতো রাইডশেয়ারিং সেবার ওপর ৫ শতাংশ ভ্যাট আরোপ করে এনবিআর।

এনবিআর সূত্র জানায়, কোম্পানিগুলোর চিঠি পর্যালোচনা করে দেখা গেছে, বিভিন্ন ব্যক্তিগত পরিবহনের মালিক নিজে কিংবা চালক নিয়োগ করে মোবাইল অ্যাপস ব্যবহারের মাধ্যমে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্য যাত্রী পরিবহনে সেবা দিয়ে থাকে। ওই সেবার বিপরীতে যাত্রী নির্দিষ্ট গন্তব্য পৌঁছানোর পর মোবাইল অ্যাপসের মাধ্যমে নির্ধারিত ভাড়া বা সেবামূল্য গাড়িচালককে পরিশোধ করে।

গাড়িচালক যাত্রীর কাছ থেকে যে ভাড়া আদায় করেন তার একটি অংশ মোবাইল অ্যাপসভিত্তিক সেবা সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান পায়। এক্ষেত্রে ভ্যাট আইনে প্রথম তফসিলের দ্বিতীয় খণ্ডে সব ধরনের বাহনের চালকের দেয়া সেবা ব্যক্তিগত সেবা হিসেবে ভ্যাট অব্যাহতি সুবিধা ভোগ করে। তাই গাড়িচালক সেবার বিপরীতে যে অর্থ নিয়ে থাকেন তা ভ্যাট অব্যাহতিপ্রাপ্ত। অর্থাৎ যাত্রী সেবার বিপরীতে মোবাইল অ্যাপসভিত্তিক প্রতিষ্ঠানে যে অর্থ পায়, সেটি ভ্যাট যোগ্য।

ট্যাগ্স
আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Leave a Reply

আরো দেখুন

Close
Close