ভারতে হার সাইফদের

এবং ডেস্ক : ভারতের রানটা দুইশ’ পেরোতে দেয়নি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের বোলররা। ভালো বোলিং করে আবু হায়দার রনি-মেহেদী মিরজরা তাদের নির্ধারিত ৫০ ওভারে ১৯২ রানে থাকায়। তুলে নেয় ৯ উইকেট। কিন্তু লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারত অনূর্ধ্ব-২৩ দলকে চ্যালেঞ্জ জানাতেই পারেনি বাংলাদেশ। আট বল থাকতে ৯ উইকেটে ১৫৮ রানে আটকে যায়। ভারত অনূর্ধ্ব-২৩ দল পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ৩৪ রানের জয় দিয়ে শুরু করল।

টস জিতে ব্যাট নেওয়া বাংলাদেশ প্রথম ওভারেই ভারতীয় ওপেনার ভুপেন্দ্র জয়সালকে শূন্য রানে বোল্ড করে দেন। বাঁ-হাতি পেসার আবু হায়দার রনি তুলে নেন উইকেট। দ্বিতীয় উইকেটে ৬৪ রানের জুটি গড়ে ভারত। ক্রিজে দাঁড়িয়ে যান মাধব কৌশিক এবং আর.বি শরৎ। তবে আবার ঘুরে দাঁড়ায় বাংলাদেশ। ৭১ রানের মধ্যে ভারত অনূর্ধ্ব-২৩ দলের চার উইকেট তুলে নেন আবু হায়দার-শফিকুল ইসলামরা। একশ’ রানের আগেই পাঁচ উইকেট হারায় স্বাগতিকরা।

সেখান থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে দুইশ’ ছুঁই ছুঁই রান করে ভারত। তিনে নামা আর.বি শরতের ৪২ রানের পর মিডল অর্ডারে ৬৯ রানের ইনিংস খেলেন আরিয়ান জোয়াল। তার ব্যাটে ভর করেই ওই সংগ্রহ পায় ভারত অনূর্ধ্ব-২৩ দল। শেষ দিকের ব্যাটসম্যানরাও অবশ্য রান পাননি। জবাব দিতে নামা বাংলাদেশ ৪৬ রানে হারায় পাঁচ উইকেট। একে-একে ফিরে যান সাব্বির হোসান, মোহাম্মদ সাইফ হাসান এবং ইয়াসির আলীরা।

সেখান থেকে ৯০ রানের জুটি গড়েন জাকির হোসেন এবং আরিফুল হকরা। মিডল অর্ডারে ৪৮ রান করে ইনজুরি নিয়ে ওঠে যান উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান জাকির হোসেন। তিনি দলকে ভরসা দিচ্ছেলেন। জাকির উঠে গেলেই বিপাকে পড়ে যায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দলের ব্যাটসম্যান। আরিফুল হক খেলেন ৩৮ রানের ইনিংস। শেষ দিকে মেহেদী মিরাজ ২০ এবং রবিউল হক ২১ রান করলে হারের ব্যবধান কমায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-২৩ দল।

বাংলাদেশের হয়ে আবু হায়দার রনি নেন ২ উইকেট। মেহেদী মিরাজ তিনটি এবং অধিনায়ক সাইফ হাসান দুটি উইকেট নেন। শফিকুল ইসলাম ও রবিউল ইসলাম নেন একটি করে উইকেট। ভারতের হয়ে শুভং হেগলে, ভুপেন্দ্র জয়সাল এবং হৃতিক শোকেন দুটি করে উইকেট নেন।

ট্যাগ্স
আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Leave a Reply

Close