লিটন-নাঈমের সেঞ্চুরি, মাহমুদুল্লাহর অপেক্ষা

এবং ডেস্ক : ভারত সফর শেষ করে সরাসরি শ্রীলংকায় যোগ দেন তরুণ ওপেনার সাইফ হাসান। শ্রীলংকা ‘এ’ দলের বিপক্ষে সিরিজের শেষ ওয়ানডেতে দারুণ এক সেঞ্চুরি করেন তিনি। এরপর জাতীয় লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলতে নেমেই রংপুর বিভাগের বিপক্ষে হার নামা ডাবল সেঞ্চুরি তুলে নেন এই ব্যাটসম্যান। জবাব দিতে নেমে ঢাকার বিপক্ষে চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে রংপুরের দুই ব্যাটসম্যান লিটন দাস ও নাঈম ইসলাম সেঞ্চুরি পেয়েছেন।

প্রথম ইনিংসে ঢাকা বিভাগ ৮ উইকেটে ৫৫৬ রান তুলে ইনিংস ঘোষণা করেন। সাইফের ব্যাট থেকে আসে ২২০ রান। এছাড়া রনি তালুকদার, রাকিবুল হাসান ও নাদিফ চৌধুরী ফিফটি তুলে নেন। জবাবে রংপুর তৃতীয় দিন শেষে প্রথম ইনিংস থেকে ৫ উইকেটে তুলেছে ৩৩৪ রান। ২৯৬ বলে ১২ চার ও এক ছয়ে ১২৪ রানে অপরাজিত থাকা নাঈম ইসলাম চতুর্থ দিন শুরু করবেন। তাকে সঙ্গ দেবেন ফিফটি করা তানভির হায়দার। তার আগে লিটন দাস ১২২ রান করে আউট হন।

ওদিকে রাজশাহীর বিপক্ষে জয় লক্ষ্য ধরে চতুর্থ দিন শুরু করবে খুলনা বিভাগ। জয়ের জন্য ইমরুলদের দরকার ১০৮ রান। হাতে আছে ৯ উইকেট। প্রথম ইনিংসে রাজশাহী ২৬১ রান তোলে। খুলনা ৩০৯ রানে থামে।তিন বছর পর বাংলাদেশ টি-২০ দলে ডাক পাওয়া পেসার আল আমিন হোসেন দ্বিতীয় ইনিংসে নিয়েছেন চার উইকেট। এছাড়া স্পিনার আব্দুর রাজ্জাক চার উইকেট দখল করেন। দ্বিতীয় ইনিংসে রাজশাহীর মুশফিক-নাজমুল শান্তরা ১৭০ রানে থামে। জবাব দিতে নামা খুলনা দ্বিতীয় ইনিংসে ১৫ হারে আনামুলকে হারিয়েছে।

প্রথম ইনিংসে ২৫৪ রানে থামা ঢাকা মেট্রো দ্বিতীয় ইনিংসে ভালো ব্যাটিং করেছে। মাহমুদুল্লাহর হার না মানা ৯৫ রানে ভর করে ৬ উইকেট হারিয়ে ২২৫ রান তুলেছে মেট্রো। প্রথম ইনিংসেও ফিফটি পান মাহমুদুল্লাহ। তার আগে প্রথম ইনিংস থেকে ৩১৯ রান তোলে সিলেট। দলের চার ব্যাটসম্যান ফিফটি পান। প্রথম ইনিংসে ৩৫৬ রান করা চট্টগ্রাম বিভাগ দ্বিতীয় ইনিংসে তৃতীয় দিন শেষে ১ উইকেট হারিয়ে ৫০ রান তুলেছে। প্রথম ইনিংসে বরিশাল বিভাগ ২১৬ রানে অলআউট হয়ে যায়। ওই ইনিংসে চার উইকেট নেন স্পিনার নাঈম হাসান।

ট্যাগ্স
আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Leave a Reply

Close