রোববার নতুন ঠিকানায় যাচ্ছে ডিএসই

এবং ডেস্ক : ছাপ্পান্ন বছরের ঠিকানা ছেড়ে নতুন ঠিকানায় যাচ্ছে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কার্যালয়। রোববার থেকে রাজধানীর নিকুঞ্জে স্থাপিত নিজস্ব ১৩ তলা ভবনই হতে যাচ্ছে ডিএসইর ঠিকানা। এ ভবন থেকেই সকল কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে। তবে মতিঝিলে আইটি, মার্কেট অপারেশনস এবং ট্রেনিং একাডেমি রয়ে যাবে।

ডিএসই’র কর্মকর্তারা জানান, বর্তমানের রাজধানীর মতিঝিলের ৯-এফ মতিঝিলের ডিএসই কার্যালয়ের স্থলে ১৯৬৩ সালে দোতলা ভবনে ডিএসইর কার্যক্রম শুরু হয়েছিল। কার্যক্রম বৃদ্ধি পাওয়ায় মতিঝিলের একাধিক ভবনের ফ্লোর ভাড়া করে বহু বছর ধরে এর কার্যক্রম চলছিল। এ অবস্থায় নিজস্ব ভবন স্থাপনের জন্য সরকারের কাছে জমি চাইলে ১৯৯৬ সালে সরকার চার কোটি টাকা মূল্যে চার বিঘা জমি বরাদ্দ দেয়। এ জমিতেই ১৩ তলা ভবন নির্মাণ করা হয়েছে।

২০০৭ সালে এর নির্মাণ কাজ শুরু হলেও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান জিবিবি মাত্র ২৪ শতাংশ কাজ করে। তাগিদ দেওয়ার পরও কাজ সম্পন্ন না করায় পুনরায় দরপত্র আহ্বান করে এনডিবিকে দায়িত্ব দেয়। নির্মাণ কাজ শুরুর প্রায় এক যুগ পর চলতি বছর এর নির্মাণ কাজ শেষ হয়। গত সেপ্টেম্বরে ডিএসইর পর্ষদ নতুন ভবনে কার্যালয় স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নেয়। ইতিমধ্যে কার্যালয় পুরোপুরি স্থানান্তর হয়েছে।

ডিএসই সূত্র জানায়, এ ভবনে ডিএসইর কার্যালয় ছাড়াও বিভিন্ন ব্রোকারেজ হাউস ও শেয়ারবাজার সম্পর্কিত সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান ভাড়ায় এখানে তাদের কার্যালয় স্থাপন করবে। তবে ব্রোকারেজ হাউসগুলোর কার্যালয়গুলো শুরু হতে আরও কিছুটা সময় লাগতে পারে।

ডিএসই ভবনের প্রথম দুই তলায় থাকবে ব্যাংক, আর্থিক প্রতিষ্ঠান, লবি, মিডিয়া সেন্টারসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান। চতুর্থ তলায় থাকবে ডিএসইর কার্যালয়। পঞ্চম তলা থেকে একাদশ তলায় বিভিন্ন ব্রোকারেজ হাউস অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের কার্যালয় থাকবে। দ্বাদশ তলায় থাকবে অডিটরিয়াম।

ট্যাগ্স
আরো দেখুন

এই সম্মন্ধীয় সংবাদ

Leave a Reply

Close